আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে সহজ ১২ টি কার্যকরী উপায় জেনে নিন

শরীরকে সুস্থ রাখতে

আমরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে সবসময় কিছু না কিছু করি। এবং সেই কারণে আমাদের শরীর প্রায়ই অসুস্থ এবং নিস্তেজ হয়ে পড়ে এবং শরীর খারাপ হয়ে যায়। তাই আমরা যদি শরীরকে সুস্থ রাখতে চাই, আমাদের বিভিন্ন বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। আমাদের বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের রোগ আক্রমন করছে। এই রোগগুলো কোন বয়স মেনে আক্রমন করেনা। অসুস্থতা যেকোন বয়সের মানুষকে প্রভাবিত করতে পারে। যাইহোক, যদি প্রথমে কোন কিছু সঠিক যত্ন নেওয়া হয় তবে তা সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়। কিন্তু যখন সময় চলে যায়, আপনি বিপদে পড়েন। তাই শরীরকে সুস্থ্য রাখার জন্য জীবনযাত্রার মান উন্নত করা যেতে পারে যাতে যেকোন রোগ প্রথমাবস্থায় প্রাথমিকভাবে যেন ঠেকানো যায়। তার জন্য কিছু স্বাস্থ্যকর টিপস আছে সেগুলো যদি আপনি সঠিকভাবে পালন করেন এবং নিয়মগুলো মেনে চলেন তাহলে আপনার শরীর ভালো থাকবে এবং আপনার মন থাকবে সতেজ ও প্রাণবন্ত।

(১) সঠিক সময়ে খাবার খাওয়া

আজ আমরা অনেকেই সঠিক সময়ে খাই না। দেখা গেছে আমাদের মধ্যে অনেকেই দুপুরে নাস্তা, রাতে লাঞ্চ এবং মধ্যরাতে ডিনার করে। ফলস্বরূপ, আমাদের শরীরে খাদ্যের প্রয়োজনীয়তা নিস্তেজ হয়ে যায়। শরীর খারাপ হয়ে যায়। বিভিন্ন রোগ যেমন গ্যাস্ট্রিক আলসার রোগ শরীরে বাসা বাঁধে। শরীরকে সুস্থ রাখার অন্যতম প্রধান উপায় হলো খাবার। না খেলে অসুস্থ হয়ে পড়বেন। তাই আমাদের খাবারের দিকে মনোযোগ দিতে হবে এবং সঠিক সময়ে খেতে হবে।

(২) বিভিন্ন ধরণের শাকসবজি, ফলমূল এবং শাকসবজি খাওয়া

আমরা প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের খাবার খাই। সেই খাবারে ভিটামিন আছে কিনা বা কতটুকু আছে তা আমরা পাত্তা দিই না। যা আমাদের শরীরকে অসুস্থ করে তুলতে পারে। আপনার শরীরের যত্ন নিতে হবে এবং প্রতিদিন সবজি খেতে হবে। পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ফল যেমন আপেল, আঙ্গুর, কমলা, কমলা, আরো অনেক ফল আছে যা খাওয়া উচিত। ঋতুতে ভিটামিন এবিসিডি সহ আরো অনেক মৌসুমী ফল এবং আরো অনেক ভিটামিন আছে যা শরীরের জন্য খুবই উপকারী।

(৩) পরিমানমতো পানি পান করুন

আমরা জানি পানির অপর নাম জীবন। পানি না খেয়ে কোনো গান এই পৃথিবীতে টিকে থাকতে পারে না। আমরা সারাদিন কঠোর পরিশ্রম করি। আমরা যখন কঠোর পরিশ্রম করি তখন আমাদের শরীর ঘামে এবং আমাদের শরীর পানিশূন্য হয়ে পড়ে। তাই আমাদের প্রতিদিন কমপক্ষে 4/5 লিটার পানি পান করতে হবে। বেশি পানি পান করলে কিডনি ভালো থাকে। শরীর ও মন দুটোই ভালো। নিয়মিত খাবার খাওয়া এবং তা থেকে পানি পান করা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ পানির অপর নাম জীবন। শরীরে যখন এই জলের অভাব হয়, তখন বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়। শরীর খারাপ হলে মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাই প্রতিদিন সুস্থ থাকতে শরীরকে ভালো রাখতে পানির অবদান অপরিহার্য। শরীর ও মন ভালো রাখতে আমরা বেশি বেশি পানি পান করব।

(৪) পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিন এবং ঘুমান

ঘুম এমন একটি জিনিস যা ঠিকমত না ঘুমালে শরীর খারাপ হয়ে যায়, মাথা কাজ করা বন্ধ করে দেয়, শরীর অসাড় হয়ে যায়। তাই আমরা সব সময় যাই করি না কেন সঠিকভাবে ঘুমাতে হবে। আমরা প্রতিদিন কত কাজ করি? যখন আমরা কর্মক্ষেত্রে ক্লান্ত বোধ করি, তখন আমাদের একটু বিশ্রাম এবং ঘুম দরকার। আপনাকে সারা দিন কাজ করতে হবে এবং রাতে ঘুমাতে হবে। সেই ঘুম ঠিক না হলে শরীর খারাপ হয়ে যায়। অনেকের পক্ষে রাত জেগে, মোবাইল দেখা, টিভি দেখা এবং বিভিন্ন ধরনের কাজ করা খুবই ক্ষতিকর। আপনি যদি দেরি করে থাকেন এবং ঘুমাতে যান, আপনার শরীর অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং আপনার মাথা ঠিকভাবে কাজ করে না। শরীর ও মনকে সুস্থ রাখতে ঘুম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। একটি কথা আছে যে আপনি যদি এক রাত জাগেন এবং 7 দিন ঘুমান, আপনি সেই রাতে একই পরিমাণ ঘুম পাবেন না।

এক্সেটার বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া ও স্বাস্থ্য বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ড G গাবিন বাকিংহামের মতে, ঘুমের অভাব একজন ব্যক্তির জ্ঞানীয় ক্রিয়া বা নতুন কিছু শেখার ক্ষমতা হ্রাস পায় কিনা তা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে পারে। সুতরাং আপনার কমপক্ষে 6 ঘন্টা ঘুম এবং আপনার শরীরকে শিথিল করা দরকার।

(৫) মনের ইচ্ছাশক্তিকে গুরুত্ব দেওয়া

আপনার খাদ্যের মাধ্যমে সঠিক পুষ্টি পেতে জটিল হতে হবে না। কারণ আপনি যদি সব সময় অন্যদের দেওয়া আদেশ ও নিষেধ মেনে চলেন, তাহলে আপনাকে কোনো না কোনো সময়ে মানসিক ও শারীরিকভাবে অসুস্থ হতে দেখা যাবে। কারণ আপনি আপনার ইচ্ছাশক্তিকে কখনোই পরিচালনা করতে পারবেন না। সুতরাং আপনাকে আপনার ইচ্ছাশক্তির দিকে মনোনিবেশ করতে হবে। যখন আপনি আপনার ইচ্ছামতো করতে চান, তখন দেখবেন আপনার মন সবসময় ভালো থাকবে, আপনার হাসি খুশি থাকবে এবং আপনার শরীর ভালো থাকবে।

(৬) ব্যায়াম করুন

আমরা আমাদের দৈনন্দিন কাজ করার জন্য রোবট হয়ে গেছি। আমি সময়ে সময়ে অফিসের কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়ি। এক সময় শরীরে জং ধরে যায়। তাই শরীর ভালো রাখতে আমাদের সকাল -বিকাল নিয়মিত ব্যায়াম করা উচিত। ব্যায়াম শরীরের বিভিন্ন অংশকে সুস্থ রাখে। শরীরের অভ্যন্তরে টুপিগুলির চলাচল রক্ত ​​সঞ্চালন বৃদ্ধি করে এবং এটিকে শক্তিশালী করে। শরীরের ভেতরে বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়। তাই শরীরকে সুস্থ রাখতে আপনাকে প্রতিদিন সকাল -বিকাল ব্যায়াম করতে হবে।

(৭) কুকুর পুষতে পারেন

আপনি যদি কুকুর প্রজননকারী হন, তাহলে প্রতি কিল প্রতি একবার কুকুরটি পাঠান, পাশাপাশি নিজে হাঁটুন। তাই কুকুর বিস্তারের পাশাপাশি, আপনি ব্যায়াম করার জন্য একটি সঙ্গী পেয়েছেন। কুকুর হাঁটার ফলস্বরূপ, আপনি নিজে হাঁটার পাশাপাশি আপনার শরীরকে ব্যায়াম করেছেন।

(৮) মন খুলে হাসুন

শরীর সুস্থ রাখার অন্যতম মাধ্যম হল খোলা মন নিয়ে হাসা। আপনি যদি আপনার মন খুলে হাসতে পারেন, তাহলে আপনি লক্ষ্য করবেন যে আপনার শরীরের সমস্ত ইন্দ্রিয় গরম হয়ে যাচ্ছে। আর আপনার দেহের ভিতরে এক ধরনের ভালো কাজ আছে। মস্তিষ্ক থাকে সতেজ। তাই খোলা মনে হাসুন শরীর ভালো রাখার অন্যতম মাধ্যম। বিশেষজ্ঞরা বলেন, হাসি শরীরকে সুস্থ রাখার সবচেয়ে ভালো উপায়।

ড. জেমস গিল বলেন, মানুষের সুখী হওয়ার চেষ্টা করা উচিত, তাহলে শরীর সুস্থ থাকবে, তিনি আরো হাসার পরামর্শ দিলেন।

(৯) সাইক্লিং করা

আপনি আপনার শরীরকে সুস্থ রাখতে দিনে একবার সাইকেল চালাতে পারেন। সাইক্লিং আপনার শরীরকে ব্যায়াম করবে এবং আপনার শরীর ও মনকে সতেজ রাখবে। তাছাড়া, ব্যায়াম করার সময় আপনি একটু স্কিপিং করতে পারেন। নাচতে পারলে আরও ভালো। নাচলে শরীরের সব অঙ্গ উষ্ণ হবে এবং শরীর ভালো থাকবে।

(১০) শারীরিক শ্রম করা

আপনি যদি প্রতিদিন নিজের কাজ নিজে করেন, দেখবেন শরীর ভালো থাকবে। আর যদি আপনার কাজ অন্য কেউ করে এবং আপনি বসে থাকেন, তাহলে আপনি দিন দিন অলস হয়ে যাবেন। অসংখ্য রোগ আপনার শরীরে বাস করবে এবং আপনি অসুস্থ হয়ে পড়বেন। আর যদি আপনি নিজের কাজ নিজে করেন, তাহলে আপনার শরীরের অঙ্গ -প্রত্যঙ্গ নড়াচড়া করবে, শরীর ব্যায়াম করবে, শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে এবং শরীর ও মন সুস্থ থাকবে।

(১১) খাবার ভালোভাবে চিবিয়ে খাওয়া

আমরা প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের খাবার খাই। খাওয়ার সময় খাবার চিবানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আপনি যদি খাবার চিবান এবং আমাকে গিলে ফেলেন, তাহলে এটি আমার গলায় আটকে যেতে পারে বা হজমে সমস্যা হতে পারে। এবং যদি সেই খাবারটি আপনি খাওয়ার পরে হজম না হন, তাহলে আপনার শরীরে বিভিন্ন রোগ বাসা বাঁধবে এবং বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেবে। তাই খাবার খাওয়ার সময় একজনকে ভালোভাবে খেয়াল রাখতে হবে যেন খাবার চিবানো হয়। খাবার চিবানো দ্রুত হজমে সাহায্য করে এবং সেই খাবারগুলো শরীরে দ্রুত কাজ করে এবং পেট ভালো রাখার পাশাপাশি শরীরে হজম শক্তি বাড়ায় এবং শরীরকে সুস্থ রাখে।

(১২) স্বাস্থ্যবিধি সঠিকভাবে মেনে চলা

আমরা যদি আমাদের শরীর ভাল রাখতে চাই, আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। নাহলে আপনি যতই করুন না কেন, শরীর ভালো থাকবে না। আপনি যা খেলবেন তা শরীরকে আরও খারাপ করবে, আপনি যা খেলবেন তা শরীরকে আরও ভাল করবে, আপনি যা খেলবেন তা শরীরকে আরও খারাপ করবে এবং আপনি যা খেলবেন তা শরীরকে আরও ভাল করে তুলবে, এই বিষয়গুলি মেনে চলতে হবে। মাসে অন্তত একবার বডি চেকআপ করাই ভালো। তাহলে বুঝতে পারবেন আপনার শরীরের অবস্থা। পরিশেষে, আমরা বলতে পারি যে শরীরকে সুস্থ রাখতে স্বাস্থ্যবিধি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

পরিশেষে, আমরা বলতে পারি যে শরীরের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে উপরের বিষয়গুলো মেনে চলতে হবে। আপনি যদি উপরোক্ত বিষয়গুলো যথাযথভাবে অনুসরণ করেন এবং সঠিকভাবে অনুসরণ করেন তাহলে ইনশাআল্লাহ আশা করি আপনার শরীর ভালো থাকবে।

রেফারেন্সঃ

bbc.com

prothomalo.com

khaboronline.com

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Previous Story

বাড়িতেই ত্বক উজ্জ্বল করতে লেবু এবং নারকেল তেলের ভূমিকা?

Next Story

জেনে নিন প্রতিদিন শারীরিক ব্যায়াম করলে কী কী উপকার পাওয়া যায়